ল্যান্ডমাইন ধ্বংসকারী ড্রোন বানিয়ে পাঁচ কোটি টাকা পেলেন ১৪ বছরের হর্ষবর্ধন

Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Jan 13, 2017 05:25 PM IST
ল্যান্ডমাইন ধ্বংসকারী ড্রোন বানিয়ে পাঁচ কোটি টাকা পেলেন ১৪ বছরের হর্ষবর্ধন
Photo : AFP
Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Jan 13, 2017 05:25 PM IST

#আমেদাবাদ: মঙ্গলবার শুভ সূচনা হয় অষ্টম ভাইব্র্যান্ট গুজরাত গ্লোবাল সামিটের ৷ এই অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ৷ এ বছরের গুজরাতে অনু্ষ্ঠিত হওয়া গ্লোবাল সামিটে গোটা দুনিয়া থেকে অংশ নেবে ১২ টি দেশের বাণিজ্যিক প্রধানরা ৷ যার মধ্যে রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, ডেনমার্ক, ফ্রান্স, জাপান, নেদারল্যান্ডস, পোল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, সুইডেন ও আরব যুক্তরাষ্ট্র ৷ তবে এরিই মধ্যে ১৪ বছরের হর্ষবর্ধন জালা এখন সকলের চর্চার বিষয় হয়ে উঠেছেন ৷ দশম শ্রেণির ছাত্র এমন কিছু করে দেখিয়েছে যা শুনে সকলেই হতবাক ৷ হর্ষ এমন একটি ড্রোন বানিয়েছেন যার জন্য গুজরাত সরকার তাকে ৫ কোটি টাকা দিয়েছেন ৷

হর্ষের বানানো ড্রোনের বিশেষত্ব হল যে এর সাহায্যে ল্যান্ডমাইন খুঁজে বের করা যাবে ৷ শুধু তাই নয় ল্যান্ডমাইন নিষ্ক্রিয় করার কাজও করে এই ড্রোন ৷ মেধাবী এই ছাত্র ড্রোন প্রোডাকশনের ব্যবসা করতে চান ৷ এবং তার উপরে ইতিমধ্যেই কাজ শুরু করে দিয়েছে ৷

হর্ষবর্ধন জানিয়েছেন, ‘২০১৬ সালে টিভি দেখার সময় একটি খবরে জানতে পারি যে ল্যান্ডমাইন নিষ্ক্রিয় করার চেষ্টায় বেশ কয়েকজন সেনার মৃত্যু হয়েছে ৷ তখনই মনে হয় যে এরকম কোনও ড্রোন যদি বানানো যায় যাতে ল্যান্ডমাইন নিষ্ক্রিয় করা সম্ভব হয় তাহলে অনেক সেনার প্রাণ বেঁচে যাবে ৷’

হর্ষ আরও জানিয়েছেন যে এই ড্রোন বানোনর চেষ্টায় তার প্রায় পাঁচ লাখ টাকার খরচা হয়ে গিয়েছে ৷ প্রথম দুটি ড্রোনর জন্য তার অভিভাবকরা ২ লক্ষ টাকা খরচা করেছে ৷ তৃতীয় ড্রোনের জন্য রাজ্য সরকার তাকে তিন লক্ষ টাকার সাহায্য করেছিল ৷

তিনি আরও জানান, ড্রোনে ২১ মেগাপিক্সেল ক্যামেরার পাশাপাশি ইনফ্রারেড, আরজিবি সেনসর ও থার্মল মিটার রয়েছে ৷ ক্যামেরা হাই রেজিলিউশন ছবি তুলতে পারবে ৷ মাটি থেকে দু ফিট উপরে ড্রোন উড়বে ৷ আট বর্গ মিটার পর্যন্ত ড্রোন রেডিয়েশন পাঠাতে থাকে ৷ এর সাহায্যে জানা যাবে ল্যান্ড মাইন কোথায় রয়েছে ৷ ল্যান্ড মানইকে নষ্ট করার জন্য ৫০ গ্রাম ওজনের একটি বোমা ড্রোনের সঙ্গেই থাকবে ৷

First published: 04:57:10 PM Jan 13, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर